সবজির থেকেও কম দামে উড়োজাহাজের টিকিট

জলের দরে পণ্য বাজারে ছার, ক্রেতা এমনিতেই ছুটে আসবে ব্যাবসার এই নীতিতে চীন বহুদিন ধরেই বিশ্বাসী। এবার চীনের বিমান সংস্থা সেই পথেই পা বাড়ালো। সবজির দামের থেকেও কম দামে বিক্রি হওয়া শুরু হল উড়ানের টিকিট। যথারীতি ঝাঁপিয়ে পড়লেন ক্রেতারা।

শুধুমাত্র করোনার জেরেই এবছর চীনের বিমানসংস্থা গুলো ব্যবসা হারিয়েছে প্রায় ৬ বিলিয়ন ডলারের। এখন পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে। শুরু হয়েছে বিমান চলাচল। তবুও আতঙ্ক কাটছে না। এই আতঙ্ক কাটাতে দরকার চোখধাধানো কোনো অফার। আর অফারের বিষয়ে চীন এর বুদ্ধির সঙ্গে কবেই বা কে পেরে উঠেছিল? অতএব টিকিট বুকিংয়ে উপচে পড়ছে ভিড়।

গুইজহাইও এয়ারলাইন্স, এয়ার গুইলিন এবং হাইনান এয়ারলাইন্স নিয়ে এসেছে নতুন নতুন অফার। নতুন রুটে চালু হয়েছে বিমান পরিষেবা কেউবা আবার পুরোনো রুটেই বাড়িয়ে দিয়েছে বিমান।

প্রথমেই যে কৌশল তারা নিয়েছেন তা হল আগের ভাড়ার মাত্র ১০% ধার্য করা হয়েছে এখনকার টিকিটের দাম। অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় আগে যদি এক জায়গা থেকে আর এক জায়গায় যেতে টিকিটের দাম পড়তো ৫০০০ টাকা, এখন সেই দাম এসে দাঁড়িয়েছে মাত্র ৫০০ টাকায়। গালভরা নাম দেওয়া হয়েছে এই অফারের।

সবজি থেকেও কম দামে উড়ান টিকিট – এই স্লোগানে ছেয়ে গেছে গোটা দেশ।আজ্ঞে হা, সবজি থেকেও কম দাম। বেইজিং থেকে ইয়ানটাই যেতে এখন বিমানভাড়া মাত্র ১১ ডলার। অর্থাৎ ৭০০ কিলোমিটার যাত্রার খরচ ১১ ডলার। শেনজেন এয়ারলাইন্স শেনজেন থেকে চেন্দু অবধি ভাড়া দাবি করছে পয়েন্ট সাত ডলার। অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় মাত্র ৫০ টাকা। এছাড়াও তারা এনেছে ম্যাজিক বাক্স কনসেপ্ট। মাত্র ২৮ ডলারে যে কেউ কিনতে পারে এই বাক্স। বছরের নির্দির্ষ্ট সময়ে দু’বার এই বাক্স খোলা যেতে পারে এবং যেকোনো জায়গা থেকে যেকোনো জায়গায় বিনামূল্যে যাতায়াত করতে পারবেন। এছাড়াও তো রয়েইছে বাই ওয়ান গেট ওয়ান অফার।

না, এতো কম দামে যদি টিকিট কাটতে অস্বস্তি হয়, তার জন্যও ব্যবস্থা আছে। এমন ব্যবস্থা আছে যাতে আপনাকে আর বাসে, ট্রেনে উঠতেই হবে না। এয়ার চাঙ্গান ৬৮০ ডলার এ দিচ্ছে গোটা পরিবারের সদস্যদের সারা বছর ধরে যতবার ইচ্ছে, যেখানে খুশি যাতায়াতের টিকিট। সঙ্গে ৫ লক্ষ ডলারের করোনা বীমার সুবিধে। কতৃপক্ষের মতে, চীন জানে কিভাবে বাজার ধরতে হয়। কিন্তু এই ধরণের প্রবণতা মারাত্মক। যদি আন্তর্জাতিক উড়ানের ক্ষেত্রেও এই ধরণের কৌশল অবলম্বন করে তারা, তবে কিন্তু অন্য উড়ান সংস্থা রীতিমতো বিপজ্জনক পরিস্থিতির মুখোমুখি হবে।

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!