সত্যি বললে পাগল ভাববে : নেতৃত্ব হারানো নিয়ে ইউনিস



ইসলামাবাদ, ২৪ মে- টেস্টে তিনি পাকিস্তানের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। দেশটির ক্রিকেট ইতিহাসেরই অন্যতম সেরা খেলোয়াড় মনে করা হয় ইউনিস খানকে। অনেকেই হয়তো ভুলে যান, এই ইউনিসের আরও একটি বড় অর্জন আছে।

পাকিস্তানকে বিশ্বকাপ জেতানো দ্বিতীয় অধিনায়ক তিনি। ২০০৯ সালে ইউনিসের নেতৃত্বেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিতেছিল পাকিস্তান, যেটি ১৯৯২ সালে ইমরান খানের ওয়ানডে বিশ্বকাপ জয়ের পর একমাত্র শিরোপা দেশটির।

অবাক করা ব্যাপার হলো, দলকে বিশ্বকাপ জেতানোর ছয় মাসের মাথায় নেতৃত্ব হারাতে হয়েছিল ইউনিসকে অন্তর্কোন্দলের শিকার হয়েছিলেন তিনি।

কেন নেতৃত্ব হারিয়েছিলেন? এতদিন পর সেই প্রসঙ্গ নিয়ে কথা বলতে গিয়ে ইউনিস জানান, সততাই কাল হয়েছিল তার। কয়েকজন খেলোয়াড় তাকে এজন্য পছন্দ করতেন না।

ইউনিস বলেন, জীবনে কখনও কখনও এমন পরিস্থিতিতে পড়তে হয়, যখন সত্য বলতে গেলে আপনাকে পাগল ভাবা হবে। আমার দোষ একটাই ছিল, আমি কয়েকজন খেলোয়াড়কে চিহ্নিত করেছিলাম যারা দেশের জন্য যথেষ্ট পরিশ্রম করে খেলতেন না।

পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক জানান, পরে অবশ্য এই খেলোয়াড়দের সঙ্গে ঝামেলা চুকে গিয়েছিল তার। তবে বাবার শিক্ষাটা মনে রেখেছিলেন ইউনিস, তার বাবা বলতেন-সব সময় বিনয়ী আর সৎ থাকবে।

ইউনিস যোগ করেন, ওই খেলোয়াড়রা অবশ্য পরে অনুতপ্ত হয়েছিলেন। আমরা তারপরও অনেকটা সময় সতীর্থ হিসেবে খেলেছি। আমি জানতাম আমি ভুল কিছু করিনি। কারণ বাবা শিখিয়েছিলেন-সবসময় সত্য বলবে এবং বিনয়ী থাকবে।

৪২ বছর বয়সী ইউনিস ২০১৭ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলেন। ১৭ বছরের ক্যারিয়ারে পাকিস্তানের হয়ে ১১৮টি টেস্ট খেলেছেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। ৫২.০৬ গড়ে করেছেন ১০ হাজারের ওপর রান। এই ফরমেটে ইউনিসের সেঞ্চুরি ৩৪টি, হাফসেঞ্চুরি ৩৩।

এছাড়া দেশের হয়ে ২৬৫টি ওয়ানডেও খেলেছেন ইউনিস। ৭ সেঞ্চুরি ও ৩৪টি হাফসেঞ্চুরিসহ ৭ হাজার ২৪৯ রান তার এই ফরমেটে।

সূত্র: জাগোনিউজ

আর/০৮:১৪/২৪ মে



Source link

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!