বিশ্বজুড়ে শুরু হয়েছে কাটছাট, মার্চে কর্মীদের বেতন কাটার ঘোষণা গোএয়ারের

করোনা ভাইরাসের প্রভাবে প্রত্যক্ষ ভাবে মুখ থুবড়ে পড়েছে বেসামরিক বিমান পরিবহণ ক্ষেত্র। তার প্রভাব পড়তে শুরু করেছে কর্মীদের উপর। কোনও সংস্থা বিনা বেতনে ছুটি, কেউ আবার আংশিক বেতন কাটার ঘোষণা করছে। কিছু সংস্থা কর্মী ছাঁটাইয়ের পথেও হাঁটতে পারে বলে আশঙ্কা দানা বাঁধছে। কর্মীদের বেতন কাটার তালিকায় শেষ সংযোজন ভারতের বিমান সংস্থা গোএয়ারের। বুধবার সংস্থার তরফে কর্মীদের ই-মেল পাঠিয়ে এই বেতন কাটার কথা জানানো হয়েছে। তবে কত শতাংশ বেতন কাটা হবে, তার উল্লেখ নেই ওই ই-মেলে।

এর আগে গত রোববার বাংলাদেশ বিমান এয়ারলাইন্স তাদের পাইলট-কেবিন ক্রু ও কর্মকর্তাদের বেতনের ১০ শতাংশ কর্তনের ঘোষনা দিয়েছে। এছাড়া কর্মীদের ওভারটাইম বন্ধসহ ১০ দফা কাটছাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
গোএয়ার-এর চিফ এগজিকিউটিভ অফিসার (সিইও) বিনয় দুবে এ দিন কর্মীদের ই-মেল করে বলেছেন, ‘‘মার্চ মাসে সব কর্মীর বেতন কাটা হবে। কারণ করোনাভাইরাসের জন্য বিমান পরিষেবা বন্ধ করা ছাড়া আমাদের আর কোনও উপায় নেই।’’ কয়েক দিন আগেই গোএয়ার বেশ কিছু পাইলটককে ছাঁটাই করেছে। বর্ষীয়ান কর্মী-অফিসারদের ৫০ শতাংশ মাইনে কাটার ঘোষণা করেছে। বহু কর্মীকে বিনা বেতনে ছুটি পাঠিয়েছে। এ বার সব কর্মীর মাইনে কাটার ঘোষণা করায় তীব্র উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় সংস্থার কর্মীরা।


অবশ্য শুধু গোএয়ারই নয়, করোনা পরিস্থিতির জেরে একই রকম সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের অধিকাংশ বিমান পরিবহণ সংস্থা। গত সপ্তাহেই ‘ইন্ডিগো’ ঘোষণা করেছে সিনিয়র অফিসারদের ৫ থেকে ২৫ শতাংশ বেতন কাটা হবে।ভারতের রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা ‘এয়ার ইন্ডিয়া’ও কেবিন ক্রু বাদ দিয়ে বাকি সব কর্মী-অফিসারদের বেতনের সঙ্গে বিভিন্ন খাতে যে অনুদান দেওয়া হয়, তার ১০ শতাংশ কমিয়ে দেওয়ার কথা জানিয়েছে। ফলে সব মিলিয়ে গোটা বিমান পরিবহণ ক্ষেত্রেই অশনিসঙ্কেত।

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!