প্রবাসীদের ঈদ উপহার দিল সিঙ্গাপুর সরকার

‘প্রবাসীদের জায়নামাজ, লুঙ্গি, পাঞ্জাবী, টুপি দিয়েছে। ভাবতেই পারিনি সরকার আমাদের কথা এত ভাবে। তাদের সম্মান পেয়ে আমি গর্বিত। তাদের কাছ থেকে উপহার পেয়ে অত্যন্ত খুশি৷ কারণ নামাজ পড়তে আমাদের জায়নামাজ লাগবে তারা তাও ভোলেনি৷ এটার মূল্য যাই হোক না কেন আমার কাছে এটা কোটি টাকার উপহার’৷

হৃদয়বিদারক কথাগুলো বলছিলেন ডরমেটরিতে থাকা এক প্রবাসী। তিনি বলেন, ‘মুসলিমদের জন্য উপহার পাঠিয়ে সিঙ্গাপুর সরকার ভালোবাসার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। সিঙ্গাপুরের সরকার ও জনগণের ভালোবাসায় সাধারণ প্রবাসীরা অভিভূত’।

প্রতি বছরই প্রবাসীদের পরিবার থেকে ঈদ উপহার হিসেবে পাঞ্জাবী আসে। করোনাভাইরাসের কারণে এবার সেটা আর সম্ভব হয়নি। সিঙ্গাপুরের সবচেয়ে বড় মার্কেট ‘মোস্তফা সেন্টা’র থেকে অনেককেই পাঞ্জাবী কিনতে দেখা গেছে। তবে নিজে যতই দামী পোশাক কেনা হোক না কেন পরিবার থেকে পাওয়া জিনিসেই বেশি আনন্দ পাওয়া যায়।

তবে সিঙ্গাপুর সরকার প্রবাসী মুসলিমদের অনুভূতির কথা উপলব্ধি করেছেন। তারা ইতোমধ্যে লকডাউনে থাকা ডরমেটরিগুলোতে অভিবাসী কর্মীদের জন্য নতুন জায়নামাজ, লুঙ্গি, পাঞ্জাবী, টুপি উপহার দিতে শুরু করেছে। সিঙ্গাপুর মুসলিম প্রধান দেশ নয় তবুও মুসলিমদের প্রতি তাদের ভালোবাসা দেখে বিষ্মিত হয়েছে পরবাসীরা।

সিঙ্গাপুরে ডরমেটরিতে আইসোলেশনে থাকা রনী মিয়া বলেন, ‘বন্দি অবস্থায় আছি। তাই ঈদ নিয়ে পরিকল্পনা নেই। জানি না কবে এই অবস্থা থেকে মুক্তি পাব। এবার ঈদ নিয়ে কোনো পরিকল্পনা না থাকলেও সিঙ্গাপুর সরকারের পক্ষ থেকে উপহার পেয়ে আমি আনন্দিত’।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হওয়ার পর সরকারি হাউসিং ফ্লাটে অবস্থান করছেন সিঙ্গাপুর প্রবাসী আমিনুল ইসলাম। ঈদের অনুভূতি জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমার কাছে ঈদ মানে সকালে নতুন জামা পরিধান করে জামাতের সহিত ঈদের সালাত আদায় করা। সালাত শেষে বন্ধু, ভাই, প্রিয়জনদের জড়িয়ে কোলাকুলি করা৷ তাছাড়া আমরা বাংলাদেশিরা ঈদের দিন সেমাই, কোর্মা, পোলাও রান্না করে সবাই একসাথে খেতে পছন্দ করি। এবার করোনাভাইরাসের কারনে কিছুই হচ্ছে না’।

আরো পড়ুন – মদিনায় মুশলধারে বৃষ্টিতে নামাজে ইমামের কান্না

Source Link

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!