ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে সৌদি আরবের জনজীবন

প্রায় তিন মাস লকডাউন থাকার পর নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় অনেকটাই স্বাভাবিক হয়ে এসেছে সৌদি আরবের জনজীবন। দীর্ঘদিন পর গৃহবন্দী থাকা প্রবাসীরা ফিরতে শুরু করেছেন নিজ নিজ কর্মস্থলে। এতে, স্বস্তি প্রকাশ করেছেন তারা।

গেলো ২ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় সৌদি আরবে। ১৪ মার্চ থেকে কয়েক দফায় প্রায় তিনমাস লকডাউন শেষে গত ২৮ মে থেকে কারফিউয়ের সময়সীমা সাময়িক শিথিলের ঘোষণা দেয় সৌদি সরকার। সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান চালু, কর্মীদের কর্মস্থলে ফিরে যাওয়া এবং মসজিদ খুলে দেওয়াসহ দেশের অভ্যন্তরে এক শহর থেকে অন্য শহরে যাতায়াতের ওপর থেকেও উঠে যায় নিষেধাজ্ঞা।

সৌদি প্রবাসী বাংলাদেশিরা জানান, লকডাউন শিথিল হওয়ার কারণে এখন কাজ শুরু হয়েছে কিন্তু এখনো বেতন পায়নি। বিক্রিবাট্টা কম হওয়ায় বেতন দিতে পারছে না। 

দীর্ঘদিন ধরে গৃহবন্দি থাকার পর নিজ কর্মস্থলে ফিরতে পেরে স্বস্তি প্রকাশ করেন সৌদি আরবের কৃষিখাতে কর্মরত শ্রমিকরা।

তবে, দীর্ঘদিন লকডাউন থাকার কারণে ব্যবসায়িক মন্দার পাশাপাশি অনেক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়েছে বলে জানিয়েছেন এই বাগান মালিক।

এক বাগান মালিক জানান, লকডাউন খুলে যাওয়ার কারণে স্বাভাবিক পরিস্থিতিতে আমরা আবার ফিরে যাচ্ছি। যেসব কর্মচারী আছেন তারা সবাই ভালো রয়েছে। 

এদিকে, লকডাউন উঠে গেলেও, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার উপর বেশ কয়েকটি আইন জারি করেছে সৌদি সরকার। মাস্ক ছাড়া কেউ বাইরে গেলে এক হাজার রিয়াল জরিমানা ও নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর বিধান রাখা হয়েছে আইনে।

গেল ২১ জুন স্বাভাবিক জীবনে ফেরার ঘোষণা দেয় সৌদি সরকার।

Source Link

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!