ধাওয়ান একটা আহাম্মক : রোহিত শর্মা -Deshebideshe


মুম্বাই, ০৯ মে- ভারতের ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা জুটি। ওপেনার হিসেবে শিখর ধাওয়ান আর রোহিত শর্মা ১০৭ ইনিংস খেলে করেছেন ৪ হাজার ৮০২ রান। রানের হিসেবে তাদের জুটিটি ওয়ানডে ইতিহাসেরই চতুর্থ সেরা।

অথচ এই ধাওয়ানের সঙ্গে একটা সময় রোহিতের বোঝাপড়া বলতে গেলেই ছিল না। এখনও তার অনেক বিষয় বিরক্ত লাগে, ইনস্টাগ্রাম লাইভে ডেভিড ওয়ার্নারের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে না জানা এমন অনেক তথ্যই ফাঁস করলেন হিটম্যান।

প্রসঙ্গটা তুলেছিলেন ওয়ার্নারই। আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদে খেলার সুবাদে ধাওয়ানের সঙ্গে তার ওপেনিং করা হয়েছে বেশ কয়েকবার। অসি ওপেনার মজার ছলে রোহিতের কাছে জানতে চান, ওপেনিংয়ে নেমে ধাওয়ান তাকে প্রথম বল মোকাবেলা করতে বলেন কি না।

রোহিত যা উত্তর দেন শুনে যে কারও ‘আক্কেল গুড়ুম’ হবে। ওপেনিং সঙ্গীকে নিয়ে রোহিত বলেন, ‘সে (ধাওয়ান) তো একটা আহাম্মক। আমি আর কি বলব। সে প্রথম বল মোকাবেলা করতে চায় না কখনই। স্পিনারকে খেলতে রাজি, কিন্তু পেস বোলার খেলবে না।’

২০১৩ সালের চ্যাম্পিয়নস ট্রফির একটা ঘটনা শেয়ার করেন রোহিত। তখন মাত্রই ওপেনিং পজিশনে ওঠে এসেছেন তিনি। হিটম্যান বলেন, ‘আমার ২০১৩ সালের কথা মনে আছে, যখন আমি সীমিত ওভারে ভারতের হয়ে ওপেনিং শুরু করেছিলাম। চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে আমার দ্বিতীয় ইনিংস ছিল সেটা। আমরা দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে খেলছিলাম, যে দলে মরনে মরকেল, ডেল স্টেইনের মতো পেসার। আমি নতুন বলে কখনও তাদের খেলিনি। তাই শিখরকে বললাম, তুমি স্ট্রাইক নাও। সে বলে ওঠে-না, রোহিত। তুমি তো কয়েকদিন ধরে খেলছো। এটা প্রথম ওভার, আমি পারব না। তুমিই করো।’

রোহিত যোগ করেন, ‘আমি বললাম, যে কিনা নিয়মিত ওপেন করে, সে স্ট্রাইক নিতে চায় না! তাই আমিই স্ট্রাইকে যাই। মরকেলের প্রথম কয়েকটা বল আমি চোখেই দেখিনি। এমন বাউন্স, ভাবনারও বাইরে ছিল। আমি আসলে মোটেই প্রস্তুত ছিলাম না। জানতাম না বল কেমন হবে, সেটাও আবার ইংল্যান্ডের মাটিতে।’

এখন অবশ্য আগের মতো সমস্যা হয় না, বলছিলেন রোহিত। ভিডিওর অন্য প্রান্তে মিটিমিটি করে হাসছিলেন ওয়ার্নার। রোহিত বলেন, ‘শিখরের সঙ্গে সেটা ছিল আমার প্রথম অভিজ্ঞতা। তবে এখন আমরা একে অপরের সঙ্গে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি।’

রোহিত এখানেই অবশ্য থামেননি। ধাওয়ানকে ‘বিরক্তিকর’ একজন মানুষ অভিহিত করে তিনি বলেন, ‘মাঝেমধ্যে সে খুব বিরক্তিকর। খেলার মাঝে হয়তো আমি একটা পরিকল্পনা করলাম-এই বোলার এটা করছে, তার সঙ্গে এভাবে খেলতে হবে। সে পাঁচ সেকেন্ড পরেই এসে বলবে-আচ্ছা কি যেন বলেছিলে? ম্যাচের মধ্যখানে আপনি যখন অনেক চাপের মধ্যে, তখন একজন এমন করলে কেমন লাগে!’

রোহিত আরও বলেন, ‘সে আরেকটা বাজে কাজ করে। যখন বল ডিফেন্ড করে, তখন দুই এক পা এগিয়ে আসে। নন স্ট্রাইকারে থেকে আপনি বুঝতে পারবেন না, সে রান নেবে নাকি নেবে না। এত বছর তার সঙ্গে ব্যাটিং করার পর আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি, যতক্ষণ বল গ্যাপে না যাবে রান নেব না। এভাবে অনেক রান মিস করেছি। কিন্তু কিছু করার নেই। তার এমন কাজের জন্য আমি কয়েকবার বিপদে পড়েছি।’

সূত্র: জাগোনিউজ

আর/০৮:১৪/০৯ মে





Source link

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!