অবৈধ শ্রমিকদের ফিরিয়ে আনতে বিমানের বিশেষ ফ্লাইট

মালয়েশিয়ান সরকার আগামী ৩১শে ডিসেম্বর ২০১৯ পর্যন্ত সেদেশে বসবাসকারী অবৈধ বাংলাদেশী শ্রমিকদের কোন রকম শর্ত বা শাস্তি ছাড়া দেশে ফিরে আসার সুযোগ দিচ্ছে। সেই সুযোগে এখন পর্যন্ত প্রায় ২৯০০০ শ্রমিক দেশে ফিরে এসেছেন। কিন্তু বিমান টিকেট জটিলতায় আটকে আছেন বহু শ্রমিক। ডিসেম্বর মাস হওয়াতে বিমান টিকেট পাওয়া দুষ্কর হয়ে দাঁড়িয়েছে। যা পাওয়া যাচ্ছে তার দামও আকাশচুম্বী অথবা বিজনেস ক্লাস।

এমন পরিস্থিতিতে দেশের শ্রমিকদের সাহায্যে এগিয়ে এসেছে রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। ঢাকা – মালয়েশিয়া রুটে রেগুলার ফ্লাইটের পাশপাশি আরো ১৬টি স্পেশাল ফ্লাইট পরিচালনা করবে বিমান বাংলাদেশ। ০৫ ডিসেম্বর, বৃহস্পতিবার, বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানা যায়, প্রবাসী বাংলাদেশী শ্রমিকদের ফিরিয়ে আনতে বিমান বোয়িং ৭৩৭ এবং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনারের বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে। মালয়েশিয়ান সরকারের সাধারণ ক্ষমার আওতাধীন শ্রমিকদের দেশে ফিরিয়ে আনতে এবং বিমানের টিকেট সংকটে পরা শ্রমিকদের সহযোগিতার জন্যই এই বিশেষ ব্যবস্থা বলে জানা যায়।

এ বিষয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ে প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী বলেন, ‘জাতীয় পতাকাবাহী  সংস্থা হিসেবে দেশের মানুষের প্রতি বিমানের সবসময়ই একটি দায়বদ্ধতা রয়েছে। বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়  এবং বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস সেই দায়বদ্ধতা থেকেই দেশের মানুষ ও প্রবাসী শ্রমজীবী ভাই-বোনদের প্রতি দায়িত্ব পালনের অংশ হিসেবে এই বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনা করছে।’

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মহিবুল হক বলেন, ‘আমাদের প্রবাসী ভাইদের সাহায্য করতে পেরে আমরা আনন্দিত। দেশের ও দেশের মানুষের স্বার্থ ও প্রয়োজনে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় এবং এর অধীনস্থ দপ্তর সংস্থাগুলো সবসময়ই প্রস্তুত।’

উল্লেখ্য, মালয়শিয়ায় প্রচুর অবৈধ বাংলাদেশী শ্রমিক রয়েছেন যাদের কোনরকম বৈধ কাগজপত্র নেই। মালয়শিয়ান পুলিশের হাতে ধরা পরলে জেল-জরিমানা সহ অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হত এইসব খেঁটে খাওয়া শ্রমিকদের।

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!